পৃষ্ঠাসমূহ

*এখন ঢাকায় তারিখ ও সময়*

বাংলা সংবাদপত্র

মঙ্গলবার, ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৪

Barcode এবং QR code কী?

Barcode:  এ সময়ে প্রায় সব পণ্যের গায়ে সাদার মাঝে কিছু কালো দাগ সম্বলিত স্টিকার দেখা যায়। বিশেষ করে বড় বড় ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে যেসব পণ্য বিক্রি হয় সেসব পণ্যের গায়ে তো অবশ্যই লাগানো থাকে। এর কারণ হলো  এই কোডগুলোতে বিভিন্ন ধরণের তথ্য লুকানো থাকে। বিশেষ ধরণের রিডার দিযে এই তথ্য উদ্ধার করা করা
যায়। পণ্যের দাম কিংবা সিরিয়াল নম্বর হাতে লিখা কিংবা টাইপ করা ঝামেলার কাজ। এতে সময় বেশি লাগে এবং ভুল হওয়ারও সম্ভাবনা থাকে। একজনের পণ্যের হিসাব করতেই ঘন্টার পর ঘন্টা লেগে যাবে। এই ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে আগে থেকেই পণ্যের গায়ে Barcode সেটে দেওয়া হয়। পণ্য যখন কাউন্টারে যাবে তখন শুধু কোডের উপরে রিডার ধরলেই দাম এবং সিরিয়াল নম্বর নির্দিষ্ট কম্পিউটার কিংবা মোবাইল ফোনের সফটওয়্যারে চলে যাবে এবং invoice (ভাউচার) তৈরি হয়ে যাবে। সেটা প্রিন্ট করা যাবে এবং ভবিষ্যতের জন্য সংরক্ষণ করা যাবে। নিচে একটি Barcode দিলাম এটি স্ক্যান করলে আমার নামসহ ফোন নম্বর পাওয়া যাবে।




QR code: এর পূর্ণরূপ Quick Response Code । এটা Barcode এর আধুনিক রূপ। Barcode এ খুব অল্প ডাটা ধারণ করতে পারে। অপরদিকে QR code অনেক বেশি ডাটা ধারণ করতে পারে। এটা দেখতে চতুর্ভূজ আকৃতির হয়ে থাকে। এই কোডে তনিটি চোখ থাকে। সব ধরণের বারকোড Barcode দেখতে একই রকম হয়। এটাকে পরিবর্তন করা খুব কঠিন। কিন্তু QR code এ অনেক ধরণের আকৃতি দেওয়া যায় তথ্য কোন রকম পরিবর্তন না করেই। অর্থাৎ একই রকম ডাটা ধারণ করানোর জন্য বিভিন্ন ডিজাইনের QR code তৈরি করা যায়। নিচের কোডটি স্ক্যান করে দেখুন রউফ এর বিস্তারিত পাবেন আপনি যা জানতে চান।

ভাবছেন এসব কোড স্ক্যান করার যন্ত্র কোথায় পাবেন? আপনার হাতে থাকা স্মার্ট ফোনটিই আপনার স্ক্যানার। নিচের লিংক থেকে একটি ছোট এপ ডাউনলোড করে ইন্সটল ফোনের ক্যামেরা কাজে লাগিয়ে স্ক্যান করুন উপরের কোড দুটি। তাহলেই বুঝতে পারবেন Barcode এবং  QR code কী এবং কিভাবে কাজ করে।

কোন মন্তব্য নেই: